প্রতিরক্ষা নীতিমালা চূড়ান্তের আগে মতামত সংগ্রহের আহ্বান টিআইবির

প্রতিরক্ষা নীতিমালা চূড়ান্তের আগে মতামত সংগ্রহের আহ্বান টিআইবির

প্রতিরক্ষা নীতিমালা চূড়ান্তের আগে মতামত সংগ্রহের আহ্বান টিআইবির

📅20 March 2018, 21:43

২০ মার্চ,CNBD :জাতীয় প্রতিরক্ষা নীতিমালার খসড়া প্রণয়ন ও মন্ত্রিপরিষদে নীতিগত অনুমোদনকে স্বাগত জানিয়েছে দুর্নীতিবিরোধী আন্তর্জাতিক সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। পাশাপাশি নীতিমালাটি চূড়ান্ত করার আগে খসড়া সম্পর্কে জনগণের মতামত দেয়ার সুযোগ সৃষ্টির জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।আজ মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান এ আহ্বান জানান। টিআইবি আশা করে, জাতীয় নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষার জন্য খুবই প্রয়োজনীয় এ নীতিমালার খসড়ায়জনগণের মতামত দেয়ার সুযোগ তৈরি করলে নীতিমালাটি সঠিকভাবে অংশগ্রহণমূলক প্রক্রিয়ায় তৈরি করার সুযোগ হবে।ইফতেখারুজ্জামান বলেন, জাতীয় প্রতিরক্ষা নীতিমালার খসড়া অনুমোদন নিঃসন্দেহে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক, যা সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সরকারের গৃহীত নীতি-কৌশলের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এ নীতিমালার প্রণয়ন দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষিত, এ নীতিমালা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জনগণের জানার যেমন অধিকার রয়েছে, তেমনি একে পরিপূর্ণ জনবান্ধব করার স্বার্থে এর প্রণয়ন-প্রক্রিয়ায় জনগণের অংশগ্রহণ ও মতামত দেয়ার সুযোগ সৃষ্টি করা গণতান্ত্রিক চর্চার অবিচ্ছেদ্য অংশ।তিনি বলেন, খসড়া নীতিমালাটি চূড়ান্তকরণের আগে এতে সরাসরি অংশীজন হিসেবে জনগণের অভিগম্যতা এবং মতামত প্রদানের সুযোগ সৃষ্টি করলে তা অধিকতর জনবান্ধব হবে।জাতীয় প্রতিরক্ষা নীতি প্রণয়নে এ অগ্রগতিকে স্বাগত জানিয়ে একে প্রাথমিক পদক্ষেপ বিবেচনা করে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক আশা প্রকাশ করেন, প্রতিরক্ষা নীতিমালার অন্যতম মূলমন্ত্র হবে স্বচ্ছতা, জবাবদিহি এবং জন-অংশগ্রহণ। প্রতিরক্ষা খাতের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি প্রতিষ্ঠায় সরকার প্রতিরক্ষা বাজেট ও তার ব্যয়ের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করারপ্রচলন করা হলে প্রতিরক্ষা ব্যয়ের ব্যাপারে জনসমর্থন বৃদ্ধি পাবে।প্রতিরক্ষা নীতিমালার অভীষ্ট লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও এর মৌলিক নীতিগত উপাদান, প্রতিরক্ষা বাহিনীর বিকাশ এবং আধুনিকায়নসহ স্বাভাবিক অবস্থায় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে এবং সংকটকালীন এর ভূমিকার নির্ধারক সম্পর্কে স্বচ্ছতার সঙ্গে জনগণকে অবহিত করার সুস্পষ্ট ব্যবস্থা এই নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত হওয়া প্রয়োজন বলে মনে করে টিআইবি। এ লক্ষ্যে খসড়া নীতিমালাটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রকাশ করে তার ওপর মতামত প্রদানের সুযোগ তৈরির জন্য আহ্বান জানিয়েছে টিআইবি।

No Comments

No Comments Yet!

You can be first one to write a comment

Leave a comment