১৪০ যুদ্ধবিমান নিয়ে পাকিস্তান সীমান্তে ভারতের মহড়া

১৪০ যুদ্ধবিমান নিয়ে পাকিস্তান সীমান্তে ভারতের মহড়া

১৪০ যুদ্ধবিমান নিয়ে পাকিস্তান সীমান্তে ভারতের মহড়া

📅17 February 2019, 21:31

জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলায় সিআরপিএফ-এর ৪৪ জওয়ান নিহত হওয়ার পর পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে উত্তেজনা চরমে উঠেছে। এর জেরে পাকিস্তান সীমান্তে ভারতীয় বিমানবাহিনী ১৪০টি যুদ্ধবিমান নিয়ে বিশাল সামরিক মহড়া চালিয়েছে।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, পাকিস্তানভিত্তিক সশস্ত্র জঙ্গি সংগঠন জঈশ-ই-মোহাম্মদের ঘাঁটিতে পাল্টা হামলা চালানোর পরিকল্পনা হিসেবে এ মহড়া চালিয়েছে ভারতীয় বিমানবাহিনী।

পাকিস্তান অথবা পুলওয়ামা হামলার কথা উল্লেখ না করে ভারতীয় বিমানবাহিনী প্রধান মার্শাল বীরেন্দ্র সিংহ ধনোয়া বলেন, ‘রাজনৈতিক নেতৃত্বের নির্দেশনা অনুযায়ী যে কোনো সময় উপযুক্ত জবাব দেয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে বিমানবাহিনী।’

গত বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) জম্মু-কাশ্মীরে ভারতের কেন্দ্রীয় আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ-এর গাড়িবহরে বিস্ফোরক বোঝাই গাড়ি নিয়ে হামলা চালায় জঈশ-ই-মোহাম্মদ। এতে ৪৪ জন সেনা নিহত হন। ঘটনার জেরে পাকিস্তান-ভারত সম্পর্কে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। দুই দেশ পাল্টাপাল্টি রাষ্ট্রদূত তলবের পর ভারত পাকিস্তান থেকে নিজেদের কূটনীতিককে প্রত্যাহার করে নেয়। এবার পাকিস্তান সীমান্তে ১৪০টি বিমান নিয়ে মহড়া চালালো দেশটির বিমানবাহিনী। হামলার পর সেনাবাহিনীকে যেকোনো পদক্ষেপ নেয়ার স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

মার্শাল বীরেন্দ্র সিংহ ধনোয়া বলেন, আমি গোটা জাতিকে আশ্বস্ত করে বলতে চাই ভারতীয় বিমানবাহিনীর সক্ষমতা ও প্রতিজ্ঞা আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা এবং সার্বভৌমত্বের ওপর যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য প্রস্তুত আছে।

সেনাবাহিনীর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের বরাতে এনডিটিভি জানিয়েছে, আগাম পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ভারতীয় বিমানবাহিনী এ মহড়া চালিয়েছে, যাতে জরুরি নির্দেশনায় তারা সঠিক লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে ও মিশন পরিচালনা করতে পারে।

মহড়া নিয়ে ভারতীয় বিমানবাহিনী প্রধান বলেন, আজ আমরা সামর্থ্যের প্রমাণ দেখালাম। ভারতীয় বিমানবাহিনী যেকোনো সময় যেকোনো হামলার জবাব দিতে প্রস্তুত। আমরা যে ভয়াবহ হামলা চালানোর সামর্থ্য রাখি তার জানান দিলাম মাত্র।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতীয় বিমানবাহিনী ওই মহড়ায় লাইট কমব্যাট এয়ারক্রাফট ‘তেজা’, অ্যাডভান্সড লাইট হেলিকপ্টার ছাড়াও ভূমি থেকে আকাশে উৎক্ষেপণযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্রবাহী বিমান ‘আকাশ’ এবং আকাশ থেকে আকাশে ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়তে সক্ষম বিমানও ছিল। এসব যুদ্ধবিমান ছাড়াও আকাশ থেকে ভূমিতে হামলা করতে সক্ষম উন্নতমানের মিগ-২৯ যুদ্ধবিমানের মহড়া চালায় বিমানবাহিনী। বিমানবাহিনীর এই মহড়ায় সুখোই-৩০, মিরেজ-২০০০, জাগুয়ার, মিগ-২১, বিসন, মিগ-২৭, মিগ-২৯, আইএল৭৮, হারকিউলিস এবং এএন-৩২ নিয়ে মোট ১৩৭টি বিমান ছিল।

মহড়ায় উপস্থিত ছিলেন সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত। এছাড়া ভারতীয় বিমানবাহিনীর সম্মানসূচক গ্রুপ ক্যাপ্টেন ও ক্রিকেট তারকা শচীন টেন্ডুলকারও মহড়ায় উপস্থিত ছিলেন

No Comments

No Comments Yet!

You can be first one to write a comment

Leave a comment