সাংবাদিক ভাইয়েরা আমাকে লড়াই করে এগিয়ে যাওয়ার সাহস যোগিয়েছেন-বিদিশা এরশাদ

0
7

সাংবাদিকদের সাথে আমার রক্তের সম্পর্ক। আমি সাংবাদিক ভাইদের সম্মান করি। এই শিক্ষা আমি আমার বাবার কাছ থেকে পেয়েছি। আমার রাজনীতিতে সামনে দূর্গম পথ সাংবাদকিদের সহযোগিতায় এগিয়ে যেতে চাই। আজ ১২ই এপ্রিল মঙ্গলবার উত্তরা ৩ নং সেক্টর দি হোয়াইট হলে ঢাকা মহানগর উত্তর জাতীয় পার্টির আয়োজনে মাহে রমজান উপলক্ষে উত্তরা প্রসে ক্লাবের সাংবাদিক ও পেশাজীবীদের সাথে ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বিদিশা এরশাদ।
জাতীয় পার্টির কো চেয়ারম্যান দয়াল কুমার বরুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এর আইন ও রাজনৈতিক উপদেষ্টা জননেতা অ্যাডভোকেট কাজী রুবায়েত হাসান, জাতীয় পার্টির যুগ্ন মহাসচিব মেজর অবসরপ্রাপ্ত শাহজাহান সিরাজ, যুগ্ন মহাসচিব মেজর অবসরপ্রাপ্ত শিকদার আনিসুর রহমান, কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক নাফিস মাহমুদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলতাবুর রহমান চৌধুরী, উত্তরা প্রেসক্লাবের প্রথম মেয়াদের সভাপতি রাসেল খান।
সাংবাদিক ও পেশাজীবীদের সম্মানে আয়োজিত ইফতার পার্টিতে বিদিশা সিদ্দিক
আরোও বক্তব্য রাখেন , উত্তরা প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহতাব ফারাহী, দৈনিক জবাবদিহির সিনিয়র সাংবাদিক মাসুদ পারভেজ, সিনিয়র সাংবাদিক এস এম জামান, লেখক, সাংবাদিক ও কলামিস্ট জাহাঙ্গীর হোসাইন বাবলু, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য পীরজাদা সৈয়দ যুবায়ের আহমেদ, গোলাম মোস্তফা পাটোয়ারী, ডাক্তার জহিরুল ইসলাম, মেজর অবসরপ্রাপ্ত শিবলী মো. সাদিক. কাজী মনির হোসেন রুবেল, এজাজ আহমেদ খাঁন, মাও. ফেরদাইস আহমেদ কোরাইশীসহ জাতীয় পার্টির স্থানীয় নের্তৃবৃন্দ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিদিশা এরশাদ ২০০৫ সালে জেলখানায় তার উপর নির্যাতনের স্মৃতি তুলে ধরে বলেন আমার অবুজ শিশুকে নিয়ে আমি দীর্ঘ ১৪ টি বছর অসহায়ের মত পথ চলেছি, কিন্তু সাংবাদিক ভাইয়েরা আমাকে লড়াই করে এগিয়ে যাওয়ার সাহস যোগিয়েছেন। প্রয়াত রাস্ট্রপতি হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদ সাংবাদিকদের ভীষন ভালোবাসতেন। এসময় তিনি উত্তরা প্রেস ক্লাবের সাংবাদিকদের পাশে থাকবেন এবং উত্তরা প্রেস ক্লাবের উন্নয়নে যা কিছু দরকার তিনি তা করবেন বলে আশ্বাস দেন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here